অ্যান্ড্রয়েড কথন হ্যাক ও এ নিয়ে আমার কিছু কথা

অ্যান্ড্রয়েড কথনঅ্যান্ড্রয়েড কথনের সূচনা নিয়ে আগেই একবার লিখেছিলাম। আজ সন্ধ্যায় সাইটটি হ্যাক হয়ে যাবার পর মনে হলো পাঠকদের উদ্দেশ্যে আমার কিছু লেখা উচিৎ। এছাড়াও ব্যাকআপ ফাইল আপলোড হতে যে সময় নিচ্ছে ততক্ষণে ক্ষোভ-দুঃখ ঝাড়ার মতো একটাই উপায় আছে আমার কাছে, লেখা।

সূচনা

অ্যান্ড্রয়েড কথনের যাত্রা শুরু হয় একরকম হঠাৎ করেই। আমার প্রথম অ্যান্ড্রয়েড কেনার প্রায় কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই মনে হলো অ্যান্ড্রয়েড নিয়ে ডেডিকেটেড কোনো সাইট থাকা প্রয়োজন। ইতোমধ্যেই অ্যান্ড্রয়েড নিয়ে বাংলা ব্লগোস্ফিয়ারে অনেক লেখা আছে, কিন্তু ডেডিকেটেড কোনো সাইট নেই।

এরচেয়েও বড় কারণ ছিল, লেখালেখি বা ব্লগিং-এর প্রতি আমার একটা নেশা আছে। অ্যান্ড্রয়েড হাতে পাবার পরই মনে হয়েছে এটা নিয়ে অনেক লেখালেখি করা যাবে। আর লেখক/ব্লগার মাত্রই জানেন যে, সবাই এই আশা করে যে তার লেখা মানুষ পড়বে।

যাই হোক, অনেকটা চুপিসারেই অ্যান্ড্রয়েড কথনের যাত্রা শুরু হয়। ফেসবুকে কেবল আমার বন্ধুতালিকায় থাকা ভাইয়ারাই প্রথমে সাইটটি দেখেন ও এগিয়ে যেতে উৎসাহ দেন। ফেসবুকের মাধ্যমেই মূলত অ্যান্ড্রয়েড কথন মাত্র ৩ মাসে দেড় লাখেরও বেশি পেজভিউ পেতে সক্ষম হয়। বর্তমানেও অ্যান্ড্রয়েড কথনের প্রধান দুই ট্রাফিক সোর্স হলো ফেসবুক আর গুগল।

সময় পেরোতে থাকে। আমিও বিপুল উদ্যমে লিখতে থাকি। কিছু কিছু ভাইয়া পরামর্শ দেন বাংলার পাশাপাশি ইংরেজিতেও লেখার। এতে করে অ্যাডসেন্স, অ্যাফিলিয়েট ইত্যাদি মাধ্যম থেকে আয়-রোজগার করা যাবে। ইংরেজিতে লিখতে আমার কোনো বাধা নেই। কিন্তু লেখার চেয়ে মার্কেটিং, এসইও ইত্যাদি কাজে বেশি সময় কাটাতে হবে। এছাড়াও ইংরেজি সাইট দাঁড় করানোও বেশ কঠিন। অন্যদিকে অ্যান্ড্রয়েড কথন মোটামুটি পরিচিতি পেয়ে গেছে। মানুষ নিয়মিত অ্যান্ড্রয়েড কথন পড়ছেন। তৈরি কমিউনিটি ছেড়ে অন্যদিকে যেতে সায় দিচ্ছিল না মন। তাছাড়া আমার সামনে পরীক্ষা রেখে দু’টো সাইট চালানোও সম্ভব না। Continue reading

ভাগ্য বদলাতে পারে হেডফোন B-) (পরীক্ষিত ;) )

মাস কয়েক আগে নতুন একটা সেট কিনেছি । সেটটার আসল বৈশিষ্ট্য সেট নিজে নয়, বরং এর সঙ্গে থাকা হেডফোনটি। সত্যিই দারুণ মিউজিক এক্সপেরিয়েন্স দেয় হেডফোনটা। তাই কেনার পর ভাবলাম, এখন আর কোথাও বিরক্ত হয়ে বসে থাকা লাগবে না। যখন কোথাও অপেক্ষা করতে হবে, লাইনে দাঁড়িয়ে থাকবে হবে, হেডফোন লাগিয়ে গান শুনতে থাকবো। গান বলতে অবশ্য মেমোরি কার্ডের গান বোঝাচ্ছি। অনেক চেষ্টা করেও এফএম রেডিওগুলো শোনার ধৈর্য্য তৈরি করতে পারেনি। যদি কোনোদিন এমন এফএম স্টেশন বের হয় যেখানে আরজে বলে কিছু থাকবে না তাহলে সেই স্টেশন শুনবো।

গান শুনে আমি সময় কাটাতে পারি ভালো। যদিও আমার গানের কালেকশন খুবই অল্প, তবুও এর প্রত্যেকটা গানের সঙ্গেই কিছু না কিছু স্মৃতি জড়িয়ে আছে। কোনোটা নস্টালজিক হওয়ার মতো (সবচেয়ে বেশি নস্টালজিক মিউজিক হচ্ছে গডফাদার এর থিম। এ নিয়ে পরে আরেকটা পোস্ট করবো ভাবছি।), কোনোটা মজার কোনো মূহুর্ত মনে করিয়ে দেয়ার মতো ইত্যাদি। তাই নতুন হেডফোন পেয়ে বেশ খুশিই হয়েছিলাম।
Continue reading

কুমারীত্বের বিনিময়েও আইফোন চাই!

কাল রাতে বিডিনিউজে নিচের নিউজটা লেখার সময় ভাবছিলাম, মেয়েদের তো ভালোই। বাণিজ্য করার মতো কিছু আছে। আমরা ছেলেরাই হলাম হতভাগা। :(( :(( :(( :(( :(( :P :P :P

কুমারীত্বের বিনিময়েও আইফোন চাই

অবশ্য একেবারে হতভাগা নই। কিডনি তো আছে। :D চাইনিজ ঐ ছেলে কিডনি বিক্রি করে আইপ্যাড ২ ছাড়াও ল্যাপটপ (সম্ভবত ম্যাকবুক) কিনেছিল। আইডিয়া খারাপ না, তাই না? জীবনে আছে কী! /:) /:) <img src="http://cdn.somewhereinblog.net/smileys/emot-slices_49.gif&quot; alt=":- মৃত্যু তো আসবেই দু’দিন আগে বা পরে। তার চেয়ে শখের জিনিসগুলো ব্যবহার করে সাধ পূরণ করে নেয়াই তো মনে হয় ভালো। :D:D

দ্রষ্টব্যঃ ছবির মেয়েটা সেই চায়নিজ মেয়ে নয়। :D:P

এসএসসি বাংলা দ্বিতীয় পত্র পরীক্ষাঃ পত্র লিখন ও গুগল হেডকোয়ার্টার্স!

Another view of the south side of the Googlepl...

Image via Wikipedia

পরীক্ষায় পত্র লিখন নিয়ে ইতরামী করা বরাবরই আমার একটি স্বভাব। 😀 তবে প্রতিবার ইংরেজি পরীক্ষায় এই ইতরামী করলেও আজ এসএসসি বাংলা দ্বিতীয় পত্র পরীক্ষায় এই ইতরামী করে আসলাম। এবারে আসুন জানা যাক ইতরামীটা কী।

পরীক্ষার দ্বিতীয় প্রশ্ন ছিল পত্র লিখন। প্রবাসী বন্ধুর কাছে মাধ্যমিক পরীক্ষার পর কী করবো তা জানিয়ে চিঠি লিখতে বলা হয়েছে। সংবাদপত্রে প্রকাশের জন্য নিবন্ধ অথবা মানপত্র লেখারও অপশন ছিল কিন্তু আমার কাছে এটাই সহজ মনে হয়েছে তাই এটাই দিয়েছি। বরাবরের মতোই চিঠির খাম আঁকার পর ঠিকানা নিয়ে বিপত্তি বাঁধলো। বিদেশের কোনো ঠিকানা বা রাস্তার নাম তো জানি না। কেবল শহরের নাম লিখে দিলে তো আবার কেমন যেন বেখাপ্পা লাগে। চিঠি যেগুলোয় চোখ বুলিয়ে গেছিলাম সেগুলোর মধ্যে প্রবাসীর কাছে চিঠি পাঠানোর কিছু ছিল না তাই ঠিকানাও পড়িনি।

বিদেশি ঠিকানা নিয়ে ঝামেলা মনে পড়ার প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই মনে পড়লো ইতরামীর কথা। 😉 প্রতিবার সাধারণত ইংরেজি পরীক্ষায় ইতরামীটা করলেও এবার বাংলা দ্বিতীয় পত্রেই ইতরামীটা করলাম। কী ইতরামী? যার কাছে চিঠি যাবে, তার ঠিকানা লিখলাম এইভাবেঃ

To
Rafique,
1600 Amphitheatre Parkway
Mountain View, CA 94043

😀 😀 😆 😆

যারা কিছুই বুঝেননি তাদের জন্যঃ
১৬০০ এমফিথিয়েটার পার্কওয়ে, মাউন্টেইন ভিউ, ক্যালিফোর্নিয়া হচ্ছে সিলিকন ভ্যালির কেন্দ্রে অবস্থিত গুগলের হেডকোয়ার্টার্স।  😉 😀 😀 😀 😆 😆

পোস্টটি উবুন্টু ১০.০৪ লুসিড লিংক্স থেকে লেখা : আমার প্রাথমিক বিশ্লেষণ

ubuntu wallpaper

উবুন্টুতে পদার্পণ নিতান্ত শখের বশে। হঠাৎই একদিন মনে হলো শখের ডেস্কটপ কম্পিউটারে একটু নতুন স্বাদ যোগ করি। যেই কথা সেই কাজ। উবুন্টুর সাইট থেকে সিডির অর্ডার দিলাম। অর্ডার দেয়ার পর কিছুদিন উর্ধ্বশ্বাসে অপেক্ষায় রইলাম সিডি আসার, যদিও তিন সপ্তাহের আগে আসার কোনো সম্ভাবনাই ছিল না। এরই মধ্যে পরিকল্পনা হলো কক্সবাজার যাবার। ব্যস! ভুলে গেলাম উবুন্টুর কথা; ঘুরে এলাম কক্সবাজার । কক্সবাজার থেকে এসেই হাতে পড়লো উবুন্টু ৯.১০। সোজা ইন্সটল। কিছুদিন মাতামাতি। পরে সব শেষ।

এরমাঝেও প্রায়ই উবুন্টু ব্যবহার করেছি। বিশেষ করে যখন বারবার লোডশেডিংয়ের কারণে এক্সপি ডিস্টার্ব দিচ্ছিলো, তখন কাজ করতে উবুন্টু লাইভ সিডি দারুণ কাজে এসেছে। এই বৈশিষ্ট্যটার জন্য উবুন্টুর কাছে আমি কৃতজ্ঞ। :)

যাই হোক, এবার মূল কথায় আসি। উবুন্টু লুসিড লিংক্স মুক্তি পেয়েছে শুনেই ডাউনলোড দিয়েছিলাম। আজ ডাউনলোড সম্পন্ন হলো। উবি দিয়ে ইন্সটল করলাম (কারণ পার্টিশনিংয়ের ঝামেলা পারি না :( )। এবারে আসি আমার মতামতে।

Continue reading

মাইক্রোসফটের স্বীকৃতি : জিমেইল হ্যাকিংয়ে ব্যবহৃত হয় আই.ই : জার্মান সরকারের আই.ই ব্যবহার না করার পরামর্শ

সম্প্রতি চীন সরকারের প্রতি গুগলের ইনডাইরেক্ট হুমকির কথা আমরা প্রায় সবাই জানি। চীনে সব ওয়েবসাইট আনব্লক করে ফেলে গুগল এবং জানিয়ে দেয় যে এতে বাধা আসলে চীনের মাটি ছাড়বে প্রতিষ্ঠানটি। গুগলের এরূপ হঠাৎ রেগে যাওয়ার পেছনে একমাত্র কারণ চায়নিজ মানবাধিকার কর্মীদের জিমেইল একাউন্ট হ্যাকিংয়ের ঘটনা। গুগল দাবি করেছে, চীন থেকেই হ্যাকিংয়ের ঘটনাটি সংঘটিত হয়েছে।

এদিকে গুগলের কঠোর সিদ্ধান্ত জানানোর কয়েকদিন পর প্রতিদ্বন্দ্বী প্রতিষ্ঠান মাইক্রোসফট স্বীকার করলো যে, হ্যাক সফল হওয়ার পেছনে ইন্টারনেট এক্সপ্লোরারের নিরাপত্তায় দুর্বলতা দায়ী ছিল। মাইক্রোসফট সম্প্রতি জানিয়েছে, তাদের ব্রাউজারে কিছু ত্রুটি ছিল যার মাধ্যমে হ্যাকাররা আক্রান্ত কম্পিউটার দূরে বসেই নিয়ন্ত্রণ করতে পারতো। মাইক্রোসফটের ভাষায়, ‌‌’সাইবার অপরাধ বা সাইবার আক্রমণ ইন্টারনেট জগতে দৈনন্দিন ঘটনা। এটি দুঃখজনক যে, সাইবার অপরাধ সংঘটনে আমাদের পণ্য [সফলতার সঙ্গে] ব্যবহৃত হচ্ছে। ভবিষ্যতে এ জাতীয় আক্রমণ ঠেকাতে আমরা গুগল এবং অন্যান্য শীর্ষস্থানীয় প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে কাজ করে যাবো।’

জার্মান সরকার এবার ইন্টারনেট এক্সপ্লোরারের বিপক্ষে

ইন্টারনেট এক্সপ্লোরারে ত্রুটির কারণে জিমেইল হ্যাকিং সম্ভব হয়েছে, মাইক্রোসফটের পক্ষ থেকে দাপ্তরিকভাবে এ কথা স্বীকার করার প্রায় পরপরই জার্মান সরকার সকল ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের ইন্টারনেট এক্সপ্লোরারের বিকল্প কোনো ব্রাউজার ব্যবহার করার পরামর্শ দিয়েছে। ফেডারেল অফিস ফর ইনফরমেশন সিকিউরিটি থেকে এই “ওয়ার্নিং” এসেছে বলে বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা গেছে।

তবে বরাবরের মতোই মাইক্রোসফট বিরোধিতা করেছে এই ওয়ার্নিংয়ের। তাদের মতে, ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার “এতো বেশি ঝুঁকিপূর্ণ নয় যে বিকল্প ব্রাউজার ব্যবহার করতে হবে”। জিমেইল হ্যাক করার বিষয়টি আসলে জার্মানীর মাইক্রোসফট মুখপাত্র বলেন, এমন ঘটনা হরহামেশা ঘটে না। জিমেইল হ্যাক করার ঘটনা যাদের দ্বারা সংঘটিত হয়েছে তারা “highly motivated people with a very specific agenda”, মন্তব্য মাইক্রোসফট মুখপাত্রের।

উল্লেখ্য, জার্মান সরকারের উক্ত ওয়ার্নিংয়ে ইন্টারনেট এক্সপ্লোরারের ৬, ৭ এবং ৮ নং সংস্করণগুলোকে ঝুঁকিপূর্ণ বলা হয়েছে। সরকারিভাবে বলা হয়েছে যে, জার্মান সরকার আশা করছে মাইক্রোসফট শিগগিরই ত্রুটি ঠিক করার জন্য প্যাচ (Patch) রিলিজ করবে।

তবে কাজটি মোটেই সহজ নয়। তিনটি আলাদা সংস্করণের ব্রাউজারের জন্য প্যাচ রিলিজ করা বেশ কঠিন কাজ। এছাড়াও তা সব কম্পিউটারে কাজ করবে কিনা এমন প্রশ্নও রয়ে যায়। এক্ষেত্রে মাইক্রোসফট বলছে, ব্যবহারকারীদের উচিৎ সর্বশেষ সংস্করণগুলো ব্যবহার করা। কেননা, এগুলো “কম ঝুঁকিপূর্ণ”।

চীনে সকল ওয়েবসাইট আনব্লক করল গুগল : বাধা এলে চীন ছাড়ার হুমকি!

প্রথম প্রকাশঃ বিবর্তন বাংলা

চীনে ইন্টারনেট ব্যবহারের উপর নিষেধাজ্ঞা জারির সমালোচনা করেন অনেক প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞই। অধিকাংশ জনপ্রিয় সাইটই ব্লক করে রাখে চীন সরকার। সম্প্রতি চীন সরকারের এই নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সব সাইট আনব্লক করার ঘোষণা দিলো ইন্টারনেট জায়ান্ট গুগল। শুধু তাই নয়, প্রয়োজনে গুগল ডট সিএন তথা গুগলের চায়নিজ ওয়েবসাইট এবং চীনে অবস্থিত গুগলের সবক’টি অফিস বন্ধ করে চীনে সকল কার্যক্রম বন্ধ করে দিবে বলেও সাফ জানিয়ে দিয়েছে গুগল। সূত্রঃ অফিশিয়াল গুগল ব্লগ এবং বিবিসি টেকনোলজি।

তবে এই সিদ্ধান্তের পক্ষে অন্য একটি কারণ দেখিয়েছে গুগল। প্রকাশিত ব্লগ পোস্টে গুগলের করপোরেট ডেভেলপমেন্ট ও প্রধান আইনি কর্মকর্তা ডেভিড ড্রামন্ড জানিয়েছেন, গুগলের এরূপ সিদ্ধান্ত নেয়ার অন্যতম কারণ চাইনিজ মানবাধিকার কর্মীদের ইমেইল (জিমেইল) একাউন্টে চায়নিজ হ্যাকারদের আক্রমণ। গুগলের মতে, খুব পরিকল্পিত ও সূক্ষ্ম এই আক্রমণ তাদের করপোরেট ইনফ্রাস্ট্রাকচারকে লক্ষ্য করেই সংঘটিত হয়েছে। এছাড়াও আক্রমণকারীরা চীন থেকে আক্রমণ পরিচালনা করেছে বলেও জানিয়েছে গুগল।

প্রকাশিত পোস্টে গুগল চীন সরকারকে সরাসরি কিছু না বললেও সরকারের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে সার্চ রেজাল্ট থেকে সকল সাইট আনব্লক করে দিচ্ছে। অর্থাৎ, গুগল সার্চে চায়নিজদের জন্য আর কোনো সাইট ব্লক করে রাখবে না গুগল। এ বিষয়ে দেশটির সরকারের সঙ্গে আলোচনা চলছে বলেও গুগলের তরফ থেকে জানানো হয়েছে।

তবে পোস্টের শেষাংশে গুগল স্পষ্টভাবেই উল্লেখ করেছে যে, যদি আনফিল্টার্ড সার্চ ইঞ্জিনের জন্য চীনের মাটি ছাড়তে হয়, প্রয়োজনে তা-ও করবে গুগল। এর ফলে, চীন থেকে গুগলের ব্যবসা সরে যাওয়া অথবা দেশটিতে ইন্টারনেট ব্যবহারের সীমাবদ্ধতা বা নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়া, শিগগিরই এ দু’টির কোনো একটি ঘটতে যাচ্ছে চীনে।

আমাকে বোধহয় পছন্দ করে গুগল‍!

কী কারণে তা জানিনা, তবে সবসময় একটা ব্যাপার লক্ষ্য করেছি যে, আমি কোনো ব্লগ তৈরি করে সেটাতে পোস্ট করা শুরু করলে গুগল খুব ভালোমতোই আমার পোস্টগুলোকে ইনডেক্স করে। বিশেষ করে ওয়ার্ডপ্রেস ডট কমে হলে তো কথাই নেই। সেদিন সেল্ফ-হোস্টেড থেকে http://aminulislam333.wordpress.com/ এই ঠিকানায় সবগুলো পোস্ট ইমপোর্ট করলাম। ওমা! কয়েক ঘণ্টা যেতে না যেতেই দেখি সবগুলো পোস্ট ইনডেক্স করে ফেলেছে গুগল। এমনকি কিছু কিছু ক্ষেত্রে প্রথম পৃষ্ঠায়ই আমার ব্লগকে ধরে আনছে। সেটা নাহয় ওয়ার্ডপ্রেস ডট কম, তাই মেনে নিলাম। কিন্তু সেলফ হোস্টেডে? নিচের ছবিটা দেখুন।

ভ্যালেন্টাইনস ডে উপলক্ষ্যে আমার ব্লগে একটা কনটেস্ট দাঁড় করেছিলাম। যে এই সময়ে সবচাইতে বেশি গঠনমূলক মন্তব্য করবেন, তার জন্য রয়েছে ভ্যালেন্টাইনস ডে থেকে শুরু করে টানা দুই মাস বিনামূল্যে আমার ব্লগে বিজ্ঞাপনের সুযোগ। সরাসরি করতে গেলে ৩০ ডলার লাগতো। কনটেস্ট জিতে গেলে সেটা আর লাগছে না।

Click This Link

ঘটনা হলো, গুগলে valentine’s day 2010 contest লিখে সার্চ করলে রেজাল্ট আসে সর্বমোট ৩২,৪০০,০০০টি। এর মধ্যে ৭ নম্বরটাই (প্রথম পাতায়) আমার ব্লগের ঠিকানা।

গুগল কি আমাকে পছন্দ করে নাকি বুঝলাম না। ;) পছন্দ করুক আর যাই করুক, লাভটা কিন্তু আমারই। ;) ;) B-)B-):P:D

মজিলার জিওড প্রকল্প ও ফ্রি ওয়েবসাইট ক্রিয়েটিং নিয়ে আমার দু’টি লেখা

অনেকেই অনেক সময় বিনামূল্যে কীভাবে ওয়েবসাইট তৈরি করা যায় এ নিয়ে খোঁজাখুঁজি করেন। কেউ খোঁজেন পিএইচপি এনাবলড ফ্রি হোস্টিং, কেউ বা সিম্পল এইচটিএমএল। সব ধরণের ডেভেলপারদের জন্যই ইন্টারনেট ঘেঁটে পাঁচটি জনপ্রিয় ও বহুল ব্যবহৃত সাইট নিয়ে আমার লেখা একটি রিভিউ প্রকাশ হয়েছে আজকের যায়যায়দিনে। পড়তে নিচে ক্লিক করুন।

http://www.jaijaidin.com/details.php?nid=97057

========
সম্প্রতি নতুন এক প্রকল্প হাতে নিয়েছে বিশ্বরেকর্ড করা ব্রাউজার মজিলা ফায়ারফক্সের ল্যাবস। এই প্রকল্পের নামকরণ করা হয়েছে জিওড। আপনি যখন সম্পূর্ণ নতুন কোন স্থানে ভ্রমণে বা জরুরি কোন কাজে যাবেন, তখন আপনাকে সাহায্য করবে মজিলা ল্যাবসের জিওড, যা মূলত ব্রাউজারেরই একটি অ্যাড-অন। বর্তমানে এটি পরীক্ষামূলক পর্যায়ে রয়েছে। মজিলার ভাইস প্রেসিডেন্ট বলেছেন, মজিলার পরবর্তী পূর্ণ সংস্করণ মজিলা ফায়ারফক্স ৩.১ এর সাথে জিওড এর পূর্ণ সংস্করণটি যুক্ত করা হবে। জিওড সম্বন্ধে আরো জানতে নিচে ক্লিক করুন।

http://www.jaijaidin.com/details.php?nid=97050