রিটার্ন

পৃথিবীর এই ক্ষণস্থায়ী ছোট জীবনে কত কিছুই ঘটে। অনেক ভয়াবহ ঘটনা যেমন ঘটে, তেমনি অনেক মহানুভবতার ঘটনাও ঘটে। কখনো তা সবার সামনে প্রকাশিত হয়, কখনো বা দু’তিনজনের মধ্যেই তা হারিয়ে যায়। কখনো কখনো আবার এমনো ঘটনা ঘটে যা সত্যিই বিস্মিত হওয়ার মতো। এসব বিস্ময়কর ঘটনা কখনো মানুষ নিজে জেনেশুনেই করে। কখনো আবার সৃষ্টিকর্তা মানুষের অজান্তেই তাদের দিয়ে এসব কাজ করিয়ে নেন।

রিটার্ন ঠিক তেমনই একটি গল্প। অর্থকড়ির টানাপোড়েনে জর্জরিত এক গ্রাম্য ট্যাক্সিচালক বৃষ্টির দিনে এক দুর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষা করে মোটামুটি সম্পদশালী এক মহিলাকে। মহিলাও তার এই উপকারের প্রতিদান না দিয়ে শান্তি পাচ্ছেন না। তিনি যে উপকার পেয়েছেন, এই উপকারের প্রতিদান টাকা-পয়সা দিয়ে দেয়া সম্ভব নয়। তাই বলে প্রতিদান না দিয়ে তো তিনি শান্তি পাচ্ছেন না। কে জানে, হয়তো বাকি জীবন তার মধ্যে এই খারাপ লাগাটা থেকেই যাবে যে তিনি সেই উপকারের প্রতিদান দিতে পারেননি।

কিন্তু এমনও তো হতে পারে, যে তিনি প্রতিদান দিয়ে ফেলেছেন। সেসব বিস্ময়কর ঘটনার একটি হয়তো তাকে দিয়েও করিয়েছেন সৃষ্টিকর্তা, তার অজান্তে, তারই নিজের হাত দিয়ে।

উপকার ও প্রতিদানের এই বিস্ময়কর ক্লাসিক গল্পের নাম রিটার্ন। ২০১০-এর ঈদুল ফিতর উপলক্ষ্যে লেখা ছোট একটি গল্প।

গল্পের ধরণঃ ক্লাসিক
দৈর্ঘ্যঃ ৩৫ পৃষ্ঠা
প্রথম প্রকাশঃ
সেপ্টেম্বর ২০১০
প্লটঃ
ইন্টারনেটে পাওয়া এক পৃষ্ঠার ছোট গল্প অনুসরণে।

গল্পটি ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন

3 responses

  1. Pingback: Did You Ever Want to be a Fiction Writer | AIS Journal

  2. গল্পটা ডাউনলোড করে একটু আগেই পড়ে শেষ করলাম। অসম্ভব সুন্দর লাগল। চালিয়ে যান সজিব ভাই।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s